কোডিভ-১৯ মোকাবেলায় মাস্ক ব্যবহারে জোর দেওয়া হবেজরুরি সভায় সিদ্ধান্ত।

রবিবার ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ধাক্কা মোকাবেলায় মাস্ক ব্যবহারে আরও জোর দেওয়া হবে। বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণের পাশাপাশি শাস্তি ও জরিমানার আওতা বাড়ানো হবে।

খুলনা করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলনকক্ষে আজ (রবিবার) সকালে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এবং খুলনা জেলায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মোঃ কামাল হোসেন সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয়, খুলনায় পরীক্ষা বিবেচনায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্তের হার চার শতাংশ। যেখানে দেশে শনাক্তের হার ১৪ শতাংশ। দেশের অনেক জেলার তুলনায় খুলনায় শনাক্ত ও মৃত্যুহার অনেক কম। এর অন্যতম কারণ, খুলনায় সময়মতো প্রয়োজনী পদক্ষেপ নেওয়া।

খুলনায় যাতে করোনাভাইরসের সংক্রমণ বৃদ্ধি না পায় তার জন্য সকল দপ্তরে সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে আন্তরিকতার সাথে সঠিক সময়ে কাজগুলো সম্পন্নের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সর্বোপরি মাস্ক ব্যবহারে জনসধারণকে উদ্ধুদ্ধ করার পাশাপাশি মসজিদে প্রচারসহ উপজেলা ও প্রত্যন্ত এলাকায়ও প্রচার জোরদারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একই সাথে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সংখ্যা বাড়িয়ে জরিমানা ও শাস্তি বাড়ানো যেতে পারে বলে সভায় সকলে মত দেন।

সভায় খুলনার বিভাগীয় কমিশনার ড. মু: আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মুন্সী মোঃ রেজা সেকেন্দার, খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ এহসান শাহ, খুলনার সিভিল সার্জন ডা: সুজাত আহমেদ, খুলনা স্বাস্থ্য বিভাগের সহকারী পরিচালক ডা. ফেরদৌসী আক্তার, খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার ম. জাভেদ ইকবাল, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জিয়াউর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইউসুপ আলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) জিএম আবুল কালাম আজাদ, খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এসএম নজরুল ইসলাম, রূপান্তরের নির্বাহী পরিচালক স্বপন কুমার গুহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।সরকারি দপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তা এবং উপজেলা প্রশাসন জুম অ্যাপের মাধ্যমে সভায় যুক্ত হন।